একটি মুক্ত
পাঠচক্র আন্দোলন

ফিচার

একশোর পর বাংলাদেশ

মর্যাদাশব্দটির মর্ম বাঙ্গালীরা খুব ভালো বুঝে। টেস্ট খেলাটাও বুঝতে শুরু করেছে। তবে বাংলাদেশের টেস্ট খেলার মর্যাদা, বা টেস্ট স্ট্যাটাস নিয়ে যখন প্রথম কথা ওঠে তখন আমরা খুব কমই সাড়া পেলাম। বড়কর্তাদের তাতে আপত্তি। তাদের হাবভাব এমন যে, আসলে কি নিয়ে কথা হচ্ছে তাই তারা বুঝতে পারছে না। সময়টা ১৯৯৭, বাংলাদেশ আইসিসি ট্রফি জেতার পর একটু মনোযোগ পেল। আদায় করে নিল ওয়ানডে স্ট্যাটাস। তবে টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার বাজিমাত টা দুবছর পরে, ’৯৯ এর বিশ্বকাপে পাকিস্তান বধের মাধ্যমে। টেস্ট স্ট্যাটাস পেতে খুব দেরি হল না। পরের বছর ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের আনুষ্ঠানিক অভিষেক হল। জেতা হয়নি। তবে প্রাপ্তির মধ্যে আছে আমিনুল ইসলামের সেঞ্চুরি। আজ ১৭ বছর পর বাংলাদেশওসেঞ্চুরিকরল। টেস্ট খেলার সেঞ্চুরি। প্রথম ম্যাচের মতো শততম টেস্টটি দেশের মাটিতে খেলার সৌভাগ্য আমদের হয়নি। এর অনেক কারণের মধ্যে একটি হতে পারে যে এর চেয়েবড়সৌভাগ্য আমাদের জন্য অপেক্ষা করছিল। আনন্দের ব্যাপার এই যে আমাদের শততম ম্যাচটা আমরা জিতেছি। এর চেয়ে বড় সৌভাগ্যের ব্যাপার আর কিছু হতে পারে না। খেলাটা টেস্ট বলেই আনন্দটা বেশি। এই সতেরো বছরে বাংলাদেশ ক্রিকেটে অনেক কিছু ঘটে গেছে। অবশ্য জয়ের পরিমাণ টা খুব গর্ব করার মতো না। তবে প্রাপ্তিরও ভান্ডার খুব ছোট না। অন্তত সাম্প্রতিক সময়ে তা খুব করেই বলা যায়। আমরা ইংল্যান্ডকে টেস্টে হারিয়েছি! এবার শ্রীলংকাকে হারালাম। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারও আমাদের! একশ টেস্টের মধ্যে প্রথম জয় আসে ৩৫ তম ম্যাচে, ২০০৫ সালে। প্রতিপক্ষ ছিল জিম্বাবুয়ে। এনামুল হক জুনিয়র, শাহরিয়ার নাফিস, জাভেদ ওমরদের সৌজন্যে সিরিজটাও জিতি আমরা। তাই প্রথম ম্যাচ সিরিজ জয় টেস্ট খেলার মর্যাদা পাওয়ার বছর পর। খুব আনন্দ পাবার মতো সংবাদ না। কিন্তু খুব দুঃখ পাবারও কী? আমরা দুবছরে যে পরিমাণ টেস্ট খেলি অস্ট্রেলিয়া, ভারত দের মতো দেশ তা একেকটা সিরিজেই খেলে। ২০০৭ যখন আনুষ্ঠানিক ভাবে ২০ ওভারের খেলা প্রচলিত হয়, টেস্ট খেলার সংখ্যা যেখানে প্রায় সব দেশেরই কমতে থাকে, তখন বাংলাদেশের কী অবস্থা হওয়ার কথা তা অনুমান করতে প্রখর কল্পনা শক্তির প্রয়োজন হয় না। যাই হোক, বাংলাদেশের দিন দিন উন্নতি হচ্ছে, এটাই সবচেয়ে বড় কথা। লক্ষ্য উপরে থাকাটাই বাঞ্চনীয়। অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট খেলা শুরু হয় ১৮৭৭ সালে। সেখানে বাংলাদেশের জন্মই ১৯৭১ সালে। বাংলাদেশের ক্রিকেট এখনো কৈশোরে আছে। শেখার বয়স। অভিজ্ঞতা জমাবার বয়স। অতিমানবীয় ফলাফল আরো কিছুদিন পরই নাহয় আশা করা যাবে। এগিয়ে যাক বাংলাদেশ।

শততম টেস্টের পর প্রতিপক্ষ ভেদে ফলাফলের পরিসংখানঃ

প্রতিপক্ষ

ম্যাচ

জয়

হার

ড্র

অস্ট্রেলিয়া









ইংল্যান্ড

১০







ভারত









নিউজিল্যান্ড

১৩



১০



পাকিস্তান

১০







দক্ষিণ আফ্রিকা

১০







শ্রীলঙ্কা

১৮



১৫



ওয়েস্ট ইন্ডিজ

১২







জিম্বাবুয়ে

১৪









[ পরিসংখ্যানের সূত্রঃ স্ট্যাটস.ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম ]

কাকাড্ডার ডাকবাক্স

কাকাড্ডা ডট কমে সাবস্ক্রাইব করলে মেইলের মাধ্যমে আমাদের সব আপডেট পাবেন

kakadda logo

ঠিকানা:
আলোরমেলা, কিশোরগঞ্জ- ২৩০০।
সেন্ট্রাল রোড, ধানমন্ডি, ঢাকা - ১২০৯।

ইমেইল:
info@kakadda.com
k
akadda.info@gmail.com

ফোন:
+8801859 304232
+8801971 104077

স্যোশাল লিঙ্কস