অণুগল্প – জীবন

আমার নাম সাদিফ। আমি জে এ কে  স্কুলে ক্লাস ফাইভে পড়ি। একদিন স্কুল থেকে ফেরার পথে একটা পাখির ছানা পেয়েছিলাম। শিমুল গাছের মগ ডাল থেকে পড়ে যাওয়ায় আহত অবস্হায় থরথর করে কাঁপছিল। আমি ছোট পাখির ছানাটিকে বুকের মাঝে আগলে বাসায় নিয়ে এসেছিলাম।লোহার খাঁচায় ছানাটির জন্যে বাসা বুনেছিলাম।

পাখির ছানাটি পেয়ে আমার ছোট বোন মাহিরা বেশ খুশি হয়েছিলো। মাহিরা ছানা দেখার জন্যে বার বার ছোট পায়ে পায়চারি করতো। ছানাটির নাম দিয়েছিলাম ‘মিকি’। খাবার সময়ে নিজ হাতে তুলে খাওয়াইতাম। অল্পদিনে ‘মিকি’ বড় হতে লাগলো। সে আস্তে আস্তে উড়াল শিখতে শুরু করলো। একদিন লোহার খাঁচার মুখ খোলা পেয়ে ‘মিকি’ সব মায়া ভেঙে চলে গেল দূর আকাশে। যেখানে তার মুক্ত জীবন।

একবার একটা বিড়াল ছানা পুষেছিলাম। আদর করে ডেকেছিলাম। নিজের বাসায় জায়গা দিয়েছিলাম। বাসার বাইরে চিনতে পারায়। সেও চলে গেলো দূরে অজানায়। তেমনি হল ‘জীবন’ তারে কি আর বেধে রাখা যায়। ঠিক যেভাবে বিড়াল ছানা যায়।

[কাকাড্ডার ডাকবাক্সে পাওয়া লেখা] 

Leave a Comment