নেপোলিয়নের চিঠি । পর্ব ৬ । সত্যজিৎ রায়ের সৃষ্টি ।

দু দিন পরে শনিবার সকালে লালমোহনবাবু এসে বললেন, জলের তল পাওয়া যায়, মনের তল পাওয়া দায়। আপনার অতলস্পর্শী চিন্তাশক্তির জন্য আপনাকে একটি অনারারি

আরো পড়ুন...

নেপোলিয়নের চিঠি । পর্ব ৫ । সত্যজিৎ রায়ের সৃষ্টি ।

আকাশে এক টুকরো মেঘ নেই। তারার আলো বলে একটা জিনিস আছে, সেটা হয়তো আমাদের কিছুটা হেল্প করতে পারে। ফেলুদার ফরমাশ অনুযায়ী গাঢ় রঙের জামা পরেছি।

আরো পড়ুন...

নেপোলিয়নের চিঠি । পর্ব ৪ । সত্যজিৎ রায়ের সৃষ্টি ।

একশো তেত্ৰিশের দুই বৌবাজার স্ট্রিট দেড়শো বছরের পুরনো বাড়ি কি না জানি না। তবে এত পুরনো বাড়িতে এর আগে আমি কখনও যাইনি তাতে কোনও সন্দেহ নেই। দুটো

আরো পড়ুন...

নেপোলিয়নের চিঠি । পর্ব ৩ । সত্যজিৎ রায়ের সৃষ্টি ।

নিউ মার্কেটের পাখির বাজারের জবাব নেই। তবে তিনকড়িবাবু যে জটায়ুকে চিনবেন না। তাতে আশ্চর্য হবার কিছু নেই, কারণ ভদ্রলোক এ দোকানে শেষ এসেছেন সিক্সটি

আরো পড়ুন...

নেপোলিয়নের চিঠি । পর্ব ২ । সত্যজিৎ রায়ের সৃষ্টি ।

স্বামীকেশবাবু একবার চারিদিকে চোখ বুলিয়ে নিলেন। মেক্যানিক্যাল জিনিসে পাৰ্বতীবাবুর খুব শখ ছিল, কারণ বৈঠকখানায় দেখেছি। একটা প্রথম যুগের সিলিন্ডার

আরো পড়ুন...

নেপোলিয়নের চিঠি । পর্ব ১ । সত্যজিৎ রায়ের সৃষ্টি ।

লালমোহনবাবু ইদানীং প্রবাদ নিয়ে ভীষণ মেতে উঠেছেন। সাড়ে তিনশো প্ৰবাদ নাকি উনি মুখস্থ করেছেন। লেখার ফাঁকে ফাঁকে লাগসই প্ৰবাদ গুঁজে দিতে পারলে

আরো পড়ুন...

প্রদোষ মিত্র, প্রফেসর শঙ্কু ও একজন মানিকবাবু

এই ফেলুদার জনক বিংশ শতাব্দীর অন্যতম বিখ্যাত চলচ্চিত্রকার সত্যজিৎ রায়। আন্তর্জাতিক মানের চলচ্চিত্র নির্মাণে যার খ্যাতি জগৎজোড়া। ১৯২১ সালের ২রা মে

আরো পড়ুন...